নাগরিক জার্নাল (৩) -আল শাহারিয়া

নাগরিক জার্নাল (৩) -আল শাহারিয়া

হৃদয়ের ঠিক মাঝখানটায় বিশাল কংক্রিটের সুসজ্জিত বাড়িতে যার বসবাস তাঁকে কিছুকাল চোখে না দেখলেও ভালো থাকা যায়।

কিন্তু সে কিছুকাল ভালো না বাসলে কিছু মুহূর্ত হয়ে ওঠে বিশাল বিষণ্নবর্ষ। রক্তিম গোলাপ অনন্য সুন্দর হলেও রক্তাক্ত গোলাপ কারও কাছেই সুন্দর নয়।

কিছু মানুষ হৃদয়ে বিশাল সিংহাসন পেতে কিছুদিনেই হৃদয় পুড়িয়ে ছাঁই করে দেয়। আবার কেউ পোড়া হৃদয়ের অনুর্বর ভূ-খণ্ডে নতুন চারা গজায়। এক অপরূপ সুন্দর শীতল হৃদয় উপহার দেয় আমাদের।

মানুষ পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশি মানুষ চিনতেই ভুল করে। কিছু আনতি সুখ নিমজ্জিত সত্তার অন্তরাল থেকে মাঝেমাঝে মুখ তুলে বলে “বেঁচে আছি।” তাঁরা চায় একটি আনকোরা ভালোবাসার জন্ম। আরেকবার ডানা মেলতে।

সুখ এবং দুঃখ একে অপরের পরিপূরক। দুঃখ ব্যতীত সুখকে উপলব্ধি করা সম্ভব নয়। যে দুঃখে জরাজীর্ণ সে-ই জানে জীবনে সুখের কতটা প্রয়োজন। আবার জন্ম থেকেই সুখী মানুষেরা কিঞ্চিৎ দুঃখ না পেলে বুঝতে পারে না যে সুখ-দুঃখের পার্থক্য কতটা।

ইউনিভার্সিটি জীবনের তারুণ্যের উদ্দীপনায় ভরপুর রাতভর কন্সার্টে বিষম ক্রন্দন আর চিৎকারে ‘ও আমায় ভালোবাসেনি…..’ গাওয়া ছেলেটি কিন্তু ওই পোড়া হৃদয় নিয়ে বেড়ে ওঠেনি।

তাঁর বাবা-মা তাঁকে যথেষ্ট স্বাধীনতায় মুড়িয়ে রাখলেও একটু বয়স হতেই অন্যের অতিরিক্ত স্বাধীনতার ফলস্বরূপ পরাধীনতার শিকলে নিজেই জড়িয়ে পড়েছে অজান্তে। এটি একটি দীর্ঘ এবং স্বল্পমেয়াদী আয়োজন।

নাগরিক জার্নাল (১) – আল শাহারিয়া

নাগরিক জার্নাল (২) – আল শাহারিয়া

কিছু রক্তিম গোলাপে মিশে থাকা ভালোবাসা একটা সময় জলন্ত সিগারেটের মতো তাঁর হৃদয়টাকেও পুড়িয়ে দিয়েছে। আনন্দ-বিষাদ আর পুরো পৃথিবীটা যাদের ম্যাগাজিনের পাতায় আর টিভির স্ক্রিনে বদ্ধ তাঁদেরও প্রকৃতি ডাকে।

তাঁরাও জানালা দিয়ে দূর-দূরান্তে দৃষ্টি ছুঁড়ে দিয়ে আক্ষেপ গিলে ফেলে। কেউ বৃদ্ধাশ্রমে আবার কেউ নিজের বাড়ি-বৃদ্ধাশ্রমে দিন কাঁটাচ্ছে। দেয়ালের ওপাশের পরবর্তী প্রজন্মের মুখ থেকে বিচ্ছুরিত বাক্য ভেদ্য দেয়াল পেরিয়ে তাঁদের কানের ভেতর ঢুকে পড়ে। এসব কথার অনুভূতি মস্তিষ্কে পৌঁছায় না। পৌঁছালেও প্রকাশ করে না। কখনো কখনো প্রকাশ করার মানুষই পায় না তাঁরা। সংকীর্ণ বাতায়নে বেঁধে রাখা তাঁদের নস্টালজিয়াগুলো সুদূর অতীতে ফিরিয়ে নিয়ে যায়। সময়-পরিস্থিতি ভিন্ন হলেও অনুভূতি এক।

—নাগরিক জার্নাল
আল শাহারিয়া
—১০ আগস্ট‚২০২০

আরও পড়ুন

Leave a Reply