শুভ জন্মদিন মারজুক
Photo: Marzuk Russell/Facebook

শুভ জন্মদিন মারজুক

মারজুক রাসেল বাংলা কবিতায় অত্যন্ত আলোচিত নাম। সময়োপযোগী বিভিন্ন কবিতা ও কবিতার বইয়ের জন্য তিনি খুব আলোচিত। গান লেখায়ও তাঁর অবস্থান সুদৃঢ়। মারজুক লেখালেখির পাশাপাশি একজন জনপ্রিয় অভিনেতা। তিনি ১৫-ই আগস্ট গোপালগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন। ছোটোবেলা থেকেই কবিতার প্রতি মারজুকের একটা দুর্বলতা কাজ করতো। তাঁর বেড়ে ওঠা খুলনা জেলার দৌলতপুর এলাকায়। তাঁর বাবা গোপালগঞ্জের একটি জুটমিলে কাজ করতেন। তিনি স্কুলে শিক্ষাজীবন শুরু করলেও ষষ্ঠ শ্রেণিতে মাদ্রাসায় ভর্তি হন। ১৯৯৩ সালে মারজুক ঢাকায় আসেন। তাঁর প্রথম কবিতা খুলনা থেকে স্থানীয় একটি ম্যাগাজিন “জনবার্তা” এ প্রকাশিত হয়েছিল। এরপর থেকে তিনি বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় লেখালেখি শুরু করেন।

মারজুক রাসেলের বইসমূহঃ

১.শান্টিং ছাড়া সংযোগ নিষিদ্ধ (২০০০)
২.চাঁদের বুড়ির বয়স যখন ষোলো (২০০৩)[৭]
৩.বাঈজি বাড়ি রোড
৪.ছোট্ট কোথায় টেনিস বল (২০০৫)[৮]
৫.দেহবণ্টনবিষয়ক দ্বিপক্ষীয় চুক্তি স্বাক্ষর (২০২০)

তিনি ২০০৪ সালে ব্যাচেলর (চলচ্চিত্র) এর মাধ্যমে অভিনয়ের সূচনা করেছিলেন এবং প্রশংসা পান। এরপর ২০০৭ এ অভিনয় করেন ‘মেড ইন বাংলাদেশ’চলচ্চিত্রে। এরপর ২০১৭ এ‘রাত্রির যাত্রি’এবং ২০১৯ সালে ‘দি ডিরেক্টর’‚‘সাপলুডু’চলচিত্রে অভিনয় করেন।

তার লেখা গানসমূহঃ
লেইস ফিতা লেইস
দে দূরে
বাইসকুপের খেলা
রাখে আল্লাহ মারে কে
হাউজি
জাত যায়
কথা
সারাবে সারাব
পাখি উড়ে যায়
পত্র দিও
মিরা ভাই
তেরো নদী সাত সমুদ্র
সবার বাংলাদেশ
তুমি হারিয়ে যাওয়ার সময় সঙ্গে নিও
নারী
একটি পরীর গল্প
কি কারণে
কোন কে কেনো
ফুল বনমালী
বেশে যাওয়ার গান
পরিনতি’
উল্টোরথে’
সে
আজকাল তোমাকে
ফুল তোক্বা
হা ডু ডুর
ভাসবো যে জ্বলে প্রেম যমুনার কোলে
ললনা
তোমার চেখে দেখলে
বদলে
মিল
মাইথ
জলকণ্যা
ফু (২০১৮)
পুড়তে চাইলে

আরও পড়ুন

এছাড়া অনন্য জীবনযাপনের জন্যেও তিনি বেশ আলোচিত ও প্রশংসিত। খাবারের ব্যাপারে তিনি অত্যন্ত সচেতন এবং সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য তিনি নিজের ফেসবুক প্রোফাইল থেকে প্রায়ই ভালো খাবারের গুনাগুন এবং খারাপ খাবারের ক্ষতিকর দিক তুলে ধরেন। আজ ১৫-ই আগস্ট‚ এই কিংবদন্তির জন্মদিন। তাঁর সর্বদা সুস্থতা কামনা করি।

-জন্মদিনে মারজুক রাসেল’কে নিয়ে লিখেছেন
আল শাহারিয়া

Leave a Reply