অরবিন্দ কেজরিওয়াল: দ্য মাফলার ম্যান

অরবিন্দ কেজরিওয়াল: দ্য মাফলার ম্যান

অরবিন্দ কেজরিওয়াল ভারতের রাজনীতিতে এমন এক গুরুত্বপুর্ণ লোক যিনি ভারতের রাজধানীতে টানা তিনবার মূখ্যমন্ত্রী হয়ে রাজনীতিতে নতুন ব্যাকরণের জন্ম দিয়েছেন।

কে এই অরবিন্দ কেজরিওয়াল?

কেজরিওয়াল গলায় মাফলার জড়াতেন বলে বিরোধীরা তাকে ব্যাঙ্গ করে তাকে ‘মাফলার ম্যান’ বলে ডাকতো।

কিন্তু কে এই মাফলার ম্যান,কেনই বা তিনি দিল্লীর মত জায়গায় টানা তিনবারের মূখ্যমন্ত্রী? যেখানে বয়েছে কংগ্রেস কিংবা বিজেপির মত বাঘা বাঘা রাজনৈতিক দল।

অরবিন্দ কেজরিওয়ালের নিজের কিংবা তার রাজনৈতিক দলের দীর্ঘ ইতিহাস নেই। তিনি ও তার দল রাজনীতির মাঠে নিতান্তই নতুন।

তার গঠন করা রাজনৈতিক দল ” আম আদমি পার্ট” এর বয়স এই বছর আটেক, ২০১২ সালে যার জন্ম।

অরবিন্দ কেজরিওয়াল একজন নিম্নমধ্যবিত্ত ঘরের সন্তান। তার জন্ম ১৬ই আগস্ট ১৯৬৮ সালে ভারতের হরিয়ানা রাজ্যে।

অরবিন্দ কেজরিওয়াল
অরবিন্দ কেজরিওয়াল

তিনি ১৯৮৫ সালে আইআইটির প্রবেশিকা পরীক্ষায় ৫৮৩তম হন এবং ওখানে থাকাকালীন তিনি মাফলার পড়ার অভ্যেস শুরু করেন।

এরপর ১৯৮৯ সালে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার হয়ে যোগ দেন টাটা স্টিলে। কিন্তু আইএএস পরীক্ষার জন্য তিনি ১৯৯২ সালে কলকাতায় চলে আসেন এবং উত্তীর্ণ হয়ে ‘ইন্ডিয়ান রেভিনিউ সার্ভিস’ এ যোগদান করেন।

২০১২ সালে কেজরিওয়ালের দল দিল্লীর বিধানসভা নির্বাচনে জয় পায়, কিন্তু একক সংখ্যা গরিষ্ঠ না থাকায় কংগ্রেসের সহায়তায় তার সরকার গঠন করেন।

কিন্তু মাত্র ৪৯ দিনের মাথায় নানা নাটকের মধ্য দিয়ে তিনি পদত্যাগ করেন। এর ফলে তিনি নানা ঝানু রাজনীতিবিদের বিদ্রুপের স্বীকার হন।

আরও পড়ুন

এরপর ২০১৪ সালে বারাণসী লোকসভা নির্বাচনে নরেন্দ্র মোদীর কাছে হেরে যান এবং ২০১৫ সালে ভালবাসা দিবসে তিনি আবার দিল্লীর মূখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন।

কিন্তু কিভাবে কেজরিওয়াল দিল্লী জয় করলেন? তার জাদুর কাঠিটি কি?

কারণ তার দল আম আদমি পার্টির প্রধান স্লোগান ছিল ‘পরিবর্তন’ এবং এরই ধারাবাহিকতায় দুর্নীতির বিরুদ্ধে যুদ্ধের স্পৃহা্র জন্য ভোটারদের আগ্রহ বাড়িয়েছে।

ভারতে দুর্নীতি রাষ্ট্রীয় সমস্যা বলে চিহ্নিত। দুর্নীতির জালে জড়িয়ে পড়েছে বহু বাঘা বাঘা রাজনীতিবিদ।

তৎকালীন দিল্লীর মূখ্যমন্ত্রী কংগ্রেস নেত্রী শিলা দীক্ষিতের পরিবারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির ব্যাপক অভিযোগ ছিল।

অপর দিকে দিল্লির স্বল্প আয়ের জনগণের ওপর ট্যাক্স, বিদ্যুৎ ও পানির দাম বাড়ানোর ফলে তাদের জীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠেছিল।

এরই ধারাবাহিকতায় আম আদমি পার্টি নিম্নবিত্ত শ্রেণিকে দুর্মূল্যের বাজারে কিছুটা স্বস্তি দিতে নানা কর্মসূচি ২০১৩ সালের নির্বাচনে এবং ৪৯ দিনের সরকার নিয়েছিল, তাতে সাধারণ মানুষের বিশ্বাসযোগ্যতা ও সহমর্মিতা অর্জনে সক্ষম হয়েছিল।

এবং ২০২০ সালেও দিল্লীর মানুষ তাদের আস্থা সেই অরবিন্দ কেজরিওয়াল এর উপরই রাখল এবং আগের থেকে বিপুল সমর্থন সেই অরবিন্দ কেজরিওয়াল সরকারকেই দিলেন।

ফেসবুকে আমাদের ফলো করুন বিশ্ববিদ্যালয়

Leave a Reply