সাইমন ওয়েকার্ট যেভাবে গুগল ম্যাপকে ভুয়া ট্রাফিক জ্যামে ফেলেছিলেন

সায়মন ও তার ট্রলি
IMAGE: SIMON WECKERT

আপনি কি একা রাস্তায় ট্রাফিক জ্যাম সৃষ্টি করতে পারবেন? আজ জানবো কিভাবে সাইমন ওয়েকার্ট যেভাবে গুগল ম্যাপকে ভুয়া ট্রাফিক জ্যামে ফেলেছিলেন।

আমরা যখন কোন স্থানে যেতে চাই, আমরা গুগল ম্যাপে চেক করি সেখানে ট্রাফিক জ্যাম আছে কি না? যদি থাকে তখন আমরা বিকল্প রাস্তা ব্যবহারের চিন্তা করি।

কিন্তু গুগল এই ট্রাফিক জ্যাম কিভাবে নির্ণয় করে? গুগলের কি প্রত্যেক গাড়িতে ট্রাকার লাগানো আছে? নিশ্চয় না।

তাহলে গুগল কি স্যাটেলাইটের ছবি বিশ্লেষণ করে এই তথ্য দেয়? না। এইটা করতে গেলে অনেক শক্তিশালী প্রযুক্তি লাগবে এবং প্রয়োজন হবে অনেক ডেটা সংরক্ষণের।

তাহলে গুগল এটা কিভাবে বের করে? গুগল ট্রাফিক লোকেট করার জন্য স্মার্টফোনের লোকেশন সার্ভিস ব্যবহার করে।

গুগলের এই দূর্বলতার সুযোগ নিয়েছিলেন সাইমন ওয়েকার্ট । তিনি বার্লিনের রাস্তায় গুগল ম্যাপে ভার্চুয়ালি ট্রাফিক জ্যাম সৃষ্টি করেছিলেন।

এই কান্ড করার জন্য তিনি ৯৯ টি এন্ড্রোয়েড চালিত ফোন ভাড়া করেন ও ৯৯ টি সিম ক্রয় করেন এবং একটি ছোট্ট ট্রলিতে করে বার্লিনের রাস্তায় বের হন।

সব গুলো ফোনে তিনি গুগল ম্যাপ চালু করেন এবং হাটতে থাকেন। একেকটা স্পটে তিনি এক বা দুই ঘন্টা অপেক্ষা করতে থাকেন

ফলে গুগল ম্যাপে রিতিমত ট্রাফিক জ্যাম লেগে যায় এবং লাল সিগনাল দেখাতে থাকে।

তিনি বলেন, “ম্যাপ কোন অঞ্চল নয়…আবার বাস্তবতার আরেকটা রূপ”।

আসলে ডেটা সংগ্রহ করা হয় একটা নির্দিষ্ট উদ্দেশ্যে। প্রত্যেকের যেমন ম্যাপের একটা নিজস্ব অঞ্চল আছে, যেটা বাস্তবতার সাথে নাও মিলতে পারে।

সাইমন ওয়েকার্ট আরও বলেন,

“সুতরাং ডেটাগুলি বিশ্বকে নিজের হিসাবে দেখা হয়, ভুলে গিয়ে যে সংখ্যাগুলি কেবল বিশ্বের একটি মডেলকে উপস্থাপন করে”

আপনি কি গুগল ম্যাপকে বোকা বানাতে চান? চেষ্টা করে দেখতে পারেন! 😁😉

আরও পড়ুন

সর্বকালের সেরা ১০ গণিতবিদ

বিশ্বের সবচেয়ে ১০ দূর্বলতম বা সস্তা মুদ্রা

ব্রেক্সিট ইস্যুঃ সংকট ও সম্ভাবনা

অনলাইনে বই পড়তে পারেন আমার ইবুক থেকে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here